সিলেট বিভাগ উন্নয়ন পরিষদ আমিরাত শাখার বর্ণাঢ্য অভিষেক

প্রকাশিত: ১০:২৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২০, ২০২১ 166 views
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেটের লোক দেশ বিদেশে সৃন্দর হৃদয়ের অধিকারী। মহান মুক্তিযুদ্ধ থেকে শুরু করে নানা আন্দোলন সংগ্রামে সিলেটের প্রবাসিরা অবদান রেখেছেন আর তা এখনো বিদ্যমান আছে। দুবাইয়ে সিলেট বিভাগ উন্নয়ন পরিষদ সংযুক্ত আরব আমিরাত শাখার অভিষেকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেছেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি দানবীর ড. সৈয়দ রাগীব আলী। তিনি শুক্রবার দুবাইয়ের একটি পাঁচতারকা হোটেলে আয়োজিত সভায় এ কথা বলেন।

শাখা সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুর রবের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী আব্দুল কাইয়ূম এবং সাংগঠনিক সম্পাদক হাজী শফিকুল ইসলামের পরিচালনায় প্রধান বক্তা ছিলেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক বীরমুক্তিযোদ্ধা ওয়েচুর রহমান চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় ট্রাস্টি বোর্ডের মহাসচিব আব্দুস শাকুর চৌধুরী, বাংলাদেশ সমিতি আবুধাবীর সভাপতি প্রকৌশলী মোয়াজ্জেম হোসেন, বাংলাদেশ সমিতি আবুধাবীর সাবেক সভাপতি প্রকৌশলী জাফর চৌধুরী, দৈনিক সিলেটের ডাকের সম্পাদক আব্দুল হাই টিপু, কেন্দ্রীয় সদস্য নুরুল হক ও শাখা সাধারণ সম্পাদক ছালেহ আহমদ।

হাফেজ নুরুল আমিনের কোরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সংগনের সহ সভাপতি হাবিবুর রহমান চুনু।

কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সিআইপি মাহাবুব আলম মানিক, সিআইপি শেখ ফরিদ, প্রকৌশলী আশীষ বড়ুয়া, ইসমাইল গণি চৌধুরী, সেলিম উদ্দিন চৌধুরী।

সংগঠনের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন যথাক্রমে গীতিকবি আজাদ লালন,  রহমত আলী শোয়েব, মোহাম্মদ শাহজাহান, সাংবাদিক লুৎফুর রহমান, হাবিবুর রহমান, আব্দুল আওয়াল, সাইফুর রহমান, শেখ লুৎফুর রহমান সহ আরো অনেকে।

অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় দাতা ও আজীবন সদস্যদের হাতে সম্মাননা স্মারক তোলে দেওয়া হয়। কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক নতৃন কমিটির মেয়াদ করোনাকালিন সময় বিবেচনা করে ২০২৩ সালের নভেম্বর পর্যন্ত ঘোষণা করেন। অনুষ্ঠানে ছড়াকার লুৎফুর রহমান সম্পাদিত ‘দুটি পাতা একটি কুঁড়ি’ স্মারকের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। পুরো অনুষ্ঠান উৎসর্গ করা হয় শাখা প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মরহুম মকবুল হোসেন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মরহুম এ এম আব্দুল্লাহ ও সাবেক সভাপতি মরহুম হাফেজ আব্দুল হকের স্মৃতির প্রতি। শেষে সিলেটের গীতিকারদের লেখা গান নিয়ে সাংস্কৃতিক পরিবেশনা করেন স্থানীয় শিল্পীরা। বর্ণাঢ্য এ অনুষ্ঠানের ইভেন্ট পার্টনার ছিলো বায়ান্ন্ টিভি।