সামাজিক সংগঠনের পরিচ্ছন্ন নীতিমালা বা গঠনতন্ত্রের অন্তরায়

প্রকাশিত: 12:11 PM, July 25, 2022 117 views
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

যে কোন সামাজিক সংগঠন পরিচালনা করার জন্য প্রয়োজন একটি সুন্দর পরিচ্ছন্ন নীতিমালা বা গঠনতন্ত্র। সামাজিক সংগঠনের মূল ভিত্তি হলো নীতিমালা বা গঠনতন্ত্র। এ ভিত্তির উপরেই দাড়িয়ে থাকে সামাজিক সংগঠন। নীতিমালা বা গঠনতন্ত্র যদি দুর্বল হয় তা হলে সে সংগঠন ভেঙ্গে পড়ে। নীতিমালা বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে। এখানে একটি বিষয় লক্ষণীয় যে (সামাজিক সংগঠনের নীতিমালা, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের নীতিমালা, সামাজিক সংগঠনের সংবিধান , সংগঠনের গঠনতন্ত্র, সামাজিক সংগঠনের কমিটি গঠনের নিয়ম, সামাজিক সংগঠনের নিয়মাবলী, সদস্য সংগঠনের গঠনতন্ত্র, ফাউন্ডেশনের গঠনতন্ত্র) সমস্ত গঠনতন্ত্র একই।

 

“সুশীল সমাজ গড়ার অবিরাম প্রত্যয়” এই মূলমন্ত্রকে সামনে রেখে একদল নিরবিচ্ছিন্ন সকল দায়িত্বশীলদের একই ছালাতলে এসে কল্যাণধর্মী কার্য বাস্তবায়ন ও মানবতার সেবায় নিজেদের আত্মনিয়োগের উদ্দেশ্যে সংঘবদ্ধ হয়ে এরই ধারাবাহিকতার প্রয়াস সামাজিক সংগঠনের ফাউন্ডেশন। সংগঠনের প্রাণশক্তি হলো অদম্য, প্রাণচঞ্চল যুবশক্তি এইরূপ কিছু সংখ্যক যুবগোষ্ঠী সাংগঠনিক প্রঙ্ঘা সমন্বিত করিয়া ও সমাজকল্যাণমূলক কাজে নিজেরদর সম্পৃক্ত করিয়া এলাকার অথবা দেশের সর্বস্তরের জনগণের অকুণ্ঠ সমর্থন ও সহযোগীতা নিয়ে রাষ্ট্রীয় বিধি বিধানের সাথে সংগতি রেখে,সংগঠন প্রতিষ্ঠিত হয়। সামাজিক সংগঠন ইহা একটি অরাজনৈতিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন হিসেবে কার্যক্রম পরিচালনা করিবে।শিক্ষা মূলক কার্যক্রম গ্রহণ করা যাতে গ্রাম ও শহরের গরীব জনগোষ্ঠির মধ্যে শিক্ষার প্রসার ঘটানোর যায়। গণশিক্ষা, শিশু শিক্ষা, বয়স্ক শিক্ষা, আরবী শিক্ষা দানের জন্য গ্রাম ও শহরের লোকদের আকৃষ্ট করা যায়। উপ-আনুষ্ঠানিক শিক্ষা কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা অশিক্ষিত জনগোষ্ঠিকে শিক্ষিত করে গড়ে তোলার পাশাপাশি তাদের ব্যবহারিক শিক্ষা দিয়ে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা। মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের বৃত্তি প্রদান এবং দুঃস্থ ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য বিনামূল্যে শিক্ষা উপকরন প্রদান করা।জনগণের সচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে অসামাজিক কার্যকলাপ, মাদকদ্রব্য ও ধুমপান বিরোধী আন্দোলন গড়ে তোলা।

 

জাতীয় ও আর্ন্তজাতিক বিভিন্ন দিবস পালনার্থে সভা-সমাবেশ, সেমিনার, র‌্যালী সহ বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহন করা।অন্যান্য মাদক দ্রব্য বর্জন করার জন্য জনগণকে উদ্বুদ্ধ করা, বাল্যবিবাহ, বহু বিবাহ, ইভটিজিং, যৌতুক ও নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে জনগণের সচেতনতা বৃদ্ধি করা, বিবাহ নিবন্ধন (কাবিন কার্যক্রমে সচেতনতা বৃদ্ধিকরণ), ঝড়, মহামারী ইত্যাদির কারণে দূর্গত মানুষের সেবা ও পুর্ণবাসন কর্মসূচী গ্রহণ। সমাজের অন্ধত্ব ও গোঁড়ামি, সমাজের কুসংস্কার ও নির্যাতন এবং সামাজিক অপরাধমূলক প্রবনতা রোধ করার জন্য বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানাদির পদক্ষেপ গ্রহণ করে জনসাধারণ কে উদ্বুদ্ধ ও সহায়তা প্রদান করা। বেওয়ারিশ লাশ দাফন-কাফনের ব্যবস্থা করা।কার্যক্রমের সুবিধার্থে অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সাথে কার্যক্রম পরিচালনা।

 

সরকারী ও বেসরকারী সকল সংস্থার সাথে উন্নয়নমূলক কার্যক্রমে সুসম্পর্ক বজায় রাখা এবং জাতীয় ও আর্ন্তজাতিক পর্যায়ে অন্যান্য সংস্থার সাথে যোগাযোগ স্থাপন (সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমোদনক্রমে)।শূণ্য পদ পূরণঃ কার্যনির্বাহী পরিষদ/সাধারণ পরিষদ/উপদেষ্টা পরিষদ এর কোন সদস্যপদ শূণ্য হলে কার্যনির্বাহী পরিষদের সিদ্ধান্তক্রমে শূণ্য পদ পূরণ করা হইবে।সদস্য পদ পুনঃবহাল: সদস্য পদ পদবি বাতিল হইয়াছে এমন সদস্য যদি পুনরায় সদস্য পদ পাইতে চাই তাহাকে সংগঠনের সমন্ত বকেয়া চাঁদা পরিশোধ এবং ভবিষ্যতে আর কোন অপরাধ করিবেন না মর্মে অঙ্গীকার নামা দিয়ে সভাপতি বরাবর লিখিতভাবে আবেদন করিতে হইবে। আবেদন পত্র কার্যকরী পরিষদ এর সভায় গৃহীত হইলে পুনঃ সদস্য পদ দান করিতে পারিবেন।সংগঠনের কোন কার্যক্রম বা গঠনতন্ত্রের ব্যাখ্যা ও প্রয়োগ বা অন্য কোন বিষয়ে সদস্যদের মধ্যে কোন বিরোধ সৃষ্টি হইলে তাহা নিরসনের জন্য সংশ্লিষ্ট “নিবন্ধীকরণ কর্তৃপক্ষকে” অবহিত করা হইবে।

 

তাহাদের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত বলিয়া গণ্য হইবে।গঠনতন্ত্রের কোন ধারা, উপধারা পরিবর্তন, পরিবর্ধন, সংযোজন কিংবা সংশোধন বা বাতিল ইত্যাদির প্রয়োজন হইলে সাধারণ সভায় ২/৩ (দুই তৃতীয়াংশ) সদস্য সম্মিলিতভাবে সিদ্ধান্ত নিয়া চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য নিবন্ধনীকরণ কর্তৃপক্ষের নিকট প্রেরণ করিতে হইবে। নিবন্ধীকরণ কর্তৃপক্ষের অনুমোদন সাপেক্ষে তাহা চূড়ান্তভাবে গৃহীত হইবে।আমি এই সামাজিক সংগঠনের লক্ষ্য উদ্দেশ্যের সঙ্গে সম্পূণরুপে একমতপোষণ করে।সামাজিক সংগঠনের বিধিমালা যথাযথভাবে মেনে চলা। সামাজিক সংগঠন এমন একটি সত্যায়িত সমীকরণ এখনে ছোট হোক বড় হোক কোন সদস্যদেরই অগ্রাহ্য করার অবকাশ নেই, সর্বোপরি সামাজিক এই উন্নয়ন কর্মকান্ডে বেগবান করার জন্য নিজেকে সদা সচেষ্ট রাখিব এই মনোভাব পোষণ করা,এবং আমার অর্পিত দায়িত্ব স্বচ্ছতার সঙ্গে পালন করিব। হে মহান স্রষ্টা আমাদের সকলকেই সামাজিক কার্যক্রম সহ মৌলিক আদর্শ বুঝার তৌফিক দান করুন আমিন, ছুম্মা আমিন।