সিলেট বিভাগীয় শ্রেষ্ঠ মানবাধিকার কর্মী ও সংগঠক হিসেবে পদক পেলেন বিয়ানীবাজারের মাহবুবুল আলম চৌধুরী

লুৎফুর রহমান লুৎফুর রহমান

সম্পাদক ও সিইও, বায়ান্ন টিভি

প্রকাশিত: ১২:৪৮ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ৬, ২০২৩ 328 views
শেয়ার করুন

 

মানবাধিকার পদক ২০২৩-এ বিভাগীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ নির্বাচিত হয়েছেন বিয়ানীবাজারের সন্তান মাহবুবুল আলম চৌধুরী (জয়নুল)

 

 

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) ফাউন্ডেশন সিলেট বিভাগীয় মানবাধিকার সম্মেলন সম্পন্ন হয়েছে। শুক্রবার (৩ নভেম্বর) বিকেল ৩টায় সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে এই সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

মানবতার সেবায় বিভাগীয় শ্রেষ্ঠ মানবাধিকার কর্মী ও সংগঠক হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ বিশেষ অবদানের জন্য আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা, আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) ফাউন্ডেশনের সিলেট বিভাগীয় সম্মেলন -২০২৩ইং এ শ্রেষ্ঠ (মানবিক) পদকে ভূষিত হয়েছেন।

তিনি করোনাকালীন সময়ে অক্সিজেন সিলিন্ডার সাপ্লাই, রক্তদান, প্লাজমা সংগ্রহ এবং (কোভিড-১৯) আক্রান্ত মৃত ব্যক্তির লাশ দাফন কাফন সম্পন্ন করা। তৃণমূলে মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় মফস্বল থেকে জেলা শহরে দক্ষ মানবাধিকার কর্মী গড়ার লক্ষ্যে কাজ করে শত শত কর্মী গড়ে তুলতে সক্ষমতা অর্জন করেন। সাধারণ মানুষের আইনি সহায়তা প্রদান, অসহায় মানুষকে সংস্থার মাধ্যমে সু- চিকিৎসার সেবার ব্যাবস্থা করে দেওয়া, বাল্যবিবাহ,পারিবারিক বিরোধ মিমাংসা , নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধে অপ্রতিরোধ্য অবস্থান নিয়ে জাতীসংঘ ঘোষিত মানবাধিকার বাস্তবায়নে সচেষ্ট ভূমিকা পালন করায়।

 

তৃণমূলে থেকে শুরু করে পুরো বিভাগেই মানবিক কার্যক্রমে বিশেষ অবদানের জন্য আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা,আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) ফাউন্ডেশন কর্তৃক সিলেট বিভাগের আওতাধীন সকল জেলার প্রায় আট হাজার দুইশত এর অধিক মানবাধিকার কর্মীদের মধ্যে সেরা ৭ জনের মধ্যে শ্রেষ্ঠ হয়ে ১ম স্থান অর্জন করায় শ্রেষ্ঠ (মানবিক) পদকে ভূষিত হয়েছেন।

 

বিয়ানীবাজার উপজেলার সন্তান, আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা, আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) ফাউন্ডেশনের সিলেট বিভাগীয় – সাংগঠনিক সম্পাদক, মাহবুবুল আলম চৌধুরী (জয়নুল) তিনি সকলের উদ্দেশ্য বলেন সকল মানবাধিকার কর্মী ও সকল নাগরিকের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। এই পদক আমার জন্য অনুপ্রেরণা হয়ে কাজ করবে। এই পদক আমাকে অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়েও বেশি কাজ করার উৎসাহী করে তুলবে। এই অর্জন এর পিছনে যাদের শ্রম রয়েছে এবং  আমাকে এতদূর এগিয়ে যাওয়ার সা্হস ও অনুপ্রেরণা যুগিয়ে যাচ্ছেন তাদের প্রতি চিরকূতজ্ঞ এই অর্জন তাদের প্রতি  উৎসর্গ করলাম। 

 

উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্তিত ছিলেন, আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) ফাউন্ডেশন সিলেটের প্রধান উপদেষ্টা ও জেলা দায়রা ও জজ আদালত সিলেটের পাবলিক প্রসিকিউটর মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন এডভোকেটের সভাপতিত্বে এবং রকিব আল মাহমুদ ও মাশরুফ মাহমুদ পরশ এর যৌথ উপস্থাপনায় সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) মো. আজবাহার আলী শেখ পিপিএম। প্রধান আলোচকের বক্তব্য রাখেন, ব্যাংকার্স ক্লাব সিলেটের সাবেক সভাপতি সৈয়দ মোহাম্মদ নকীব হোসেইন।

 

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ছামির মাহমুদ, ইএন্ডডি বিভাগের পুলিশ ইন্সপেক্টর সৈয়দ আনিসুর রহমান, শান্ত-মারিয়াম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-পরিচালক ও সওদাগর ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো. সিদ্দিকুর রহমান, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক মোহাম্মদ লুৎফুর রহমান, কবি ও মুক্তিযুদ্ধ গবেষক ওয়ালি মাহমুদ।  স্বাগত বক্তব্য রাখেন, আসক ফাউন্ডেশন সিলেট জেলা কমিটির সভাপতি এডভোকেট খন্দকার সাইফুর রহমান রানা সহ বিভিন্ন জেলা উপজেলা থেকে আগত মানবাধিকারকর্মী গন।

 

অনুষ্ঠানে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মানবাধিকার কর্মী মাওলানা রেজাউল করিম মুরাদ। মানবাধিকার রক্ষায় বিশেষ অবদান রাখায় মানবাধিকার কর্মী ও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষকে সম্মননা স্মারক প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন শিক্ষার্থীদের মধ্যে পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়।