শান্তিগঞ্জে নির্বাচনে নতুনদের বাজিমাত

প্রকাশিত: ১২:৫৫ পূর্বাহ্ণ, জুন ৬, ২০২৪ 161 views
শেয়ার করুন

চমক দেখিয়ে বিশাল ভোটের ব্যবধানে শান্তিগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছেন সাবেক পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এর পুত্র, উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি, অর্থনীতিবিদ সাদাত মান্নান অভি। নির্বাচনে তার প্রতীক ছিলো আনারস। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী, সুনামগঞ্জ সদর আওয়ামীলীগের সভাপতি, শান্তিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান হাজি আবুল কালামের চেয়ে ২১ হাজার ৭৩২ ভোট বেশি পেয়ে নিরঙ্কুশ জয় পেয়েছেন অভি মান্নান। উপজেলার ১৫৫টি গ্রামের ৫৬ কেন্দ্রে তিনি মোট ভোট পেয়েছেন ৪০ হাজর ৯৮৭টি। হাজি আবুল কালাম পেয়েছেন ১৯ হাজার ২৫৫টি ভোট। অপর প্রার্থী এড. বোরহান উদ্দিন দোলন ঘোড়া প্রতীকে পেয়েছেন ৪ হাজার ৯৮টি ভোট।

অপরদিকে, তিন প্রতিদ্বন্দ্বীকে পেছনে ফেলে সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন ‘গরিবের প্রার্থী’ খ্যাত মোশাররফ হোসেন জাকির (মাইক)। তিনি পেয়েছেন ৩৪ হাজার ৩ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রোকনুজ্জামান রুকন (চশমা) পেয়েছেন ২০ হাজার ৬৯টি ভোট, মাও. জাহাঙ্গীর খাঁন (টিউবওয়েল) পেয়েছেন ৫ হাজার ২৯২ ভোট ও মো. আনোয়ার হোসেন (তালা) পেয়েছেন ৩ হাজার ৯৩৯ ভোট।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন মোছা. রফিকা মহির (ফুটবল)। তিনি পেয়েছেন ২৩ হাজার ৪৩৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নাজমা বেগম (প্রজাপতি) ১৪ হাজার ৪৮৮, খাইরুন নেছা (কলসি) ১১ হাজার ৫২১, দোলন রানী তালুকদার (পদ্মফুল) ১০ হাজার ৩২ ও জেসমিন আক্তার (হাঁস) পেয়েছেন ৩ হাজার ৭০৯ টি ভোট।

বুধবার রাত ৯টায় শান্তিগঞ্জ উপজেলার ঝিলমিল অডিটোরিয়ামে বেসরকারি এই ফলাফল ঘোষণা করেন সহকারি রিটার্নিং কর্মকর্তা ও শান্তিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সুকান্ত সাহা।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী রফিকা মহির এ বিজয়ের জন্য উপজেলাবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।

নিজের বিজয়ে ভোটারদের প্রতি কৃতজ্ঞ ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী মোশাররফ হোসেন জাকিরও। তিনি বলেন,  উপজেলার মানুষে ভালোবাসার ভার বহন করার ক্ষমতা আমার নাই। আমি সবার কাছে আজীবন ঋনী হয়ে রইলাম।

নিরঙ্কুশ বিজয় পেয়ে উচ্ছ্বাসিত সাদাত মান্নান অভি। বিজয়মূহুর্তে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বায়ান্ন টিভি ডটকমকে তিনি বলেন, এ বিজয় সাধারণ মানুষের। এ বিজয় শিক্ষা, স্বাস্থ্য, তারুণ্য ও পরিবেশ উন্নয়নের। আমি নিজেও ভাবিনি শান্তিগঞ্জ উপজেলার মানুষ আমাকে এতো ভালোবাসা দিবেন। আমি তাদের কাছে চিরঋণী হয়ে রইলাম। উপজেলার সাধারণ মানুষকে নিয়ে কাজ করতে চাই। আমাকে সবাই পরামর্শ দিবেন। সবাইকে নিয়ে একটি সমৃদ্ধ উপজেলা প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। সকলের দোয়া ও সহযোগিতা প্রত্যাশী।