দুবাইয়ে উদ খালিজি পারফিউম শো-রুমের উদ্ভোধন

আমিনুল হক আমিনুল হক

বায়ান্ন টিভি

প্রকাশিত: ১২:৫৬ অপরাহ্ণ, মে ১৯, ২০২৪ 121 views
শেয়ার করুন

সরকার দেশে বিনিয়োগের উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করেছে। প্রবাসী উদ্যোক্তারা বিদেশে বিনিয়োগ করে রেমিটেন্স প্রবৃদ্ধিতে অংশগ্রহণের পাশাপাশি দেশেও বিনিয়োগ করে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে পারেন। বর্তমানে পারফিউম ব্যবসার সঙ্গে যারা জড়িত রয়েছেন তাদের অনেকেই ভালো অবস্থানে আছেন। সবাইকে দেশের স্বার্থে এগিয়ে আসা উচিত।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে বাংলাদেশী মালিকানাধীন “উদ খালিজী” পারফিউম শো-রুমের শুভ উদ্ভোধনকালে প্রবাসী ব্যবসায়ীদের দেশে বিনিয়োগের আহবান জানিয়েছেন আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আবু জাফর।

শুক্রবার (১৭ই মে) দুবাইয়ের দেরা এলাকায় টোকিও সেট গ্রুপ ও মাহবুব পারফিউমের চেয়ারম্যান সিআইপি মাহবুব আলম মানিকের মালিকানাধীন “উদ খালিজী পারফিউম” শো-রুম উদ্ভোধনে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কন্সুল্যেট জেনারেল দুবাইয়ের কন্স্যাল জেনারেল বিএম জামাল হোসেন, কমিউনিটি নেতা সিআইপি আবু জাফর, কাজী মোহাম্মদ আলী প্রমুখ।

বাংলাদেশ কন্সুল্যেট জেনারেল দুবাইয়ের কন্স্যাল জেনারেল বিএম জামাল হোসেন বলেন, মরুর দেশ খ্যাত মধ্যপ্রাচ্যের বুকে বাংলাদেশীদের হাত ধরেই তৈরি হচ্ছে বিশ্বমানের আতর-সুগন্ধি। আমিরাতে অন্যান্য ব্যবসায়ের পাশাপাশি বাংলাদেশি পারফিউম ব্যবসায়ীরা দেশের সুনাম বৃদ্ধি করছেন। এই ব্যবসায়ের ধারাবাহিক সফলতা আসুক।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে দীর্ঘদিন থেকে ব্যবসা করে আসছেন মাহবুব আলম মানিক সিআইপি। তিনি কুমিল্লার কোতায়ালি থানার ধনুয়াখলা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৯২ সালে সৌদি আরব দিয়ে প্রবাস জীবনের যাত্রা শুরু করেন। দীর্ঘ আট বছর সৌদি আরবে ব্যবসা করার পর ২০০০ সালে তিনি আমিরাতে বসতি শুরু করেন। অল্প সময়ের মধ্যে বাংলাদেশি কমিউনিটিসহ আরব আমিরাতের বাজারে টোকিওসেট গ্রুপ দিয়ে খ্যাতি অর্জন করেছেন। ২০১৬ এবং ২০১৭ সালে তিনি বাংলাদেশ ব্যাংক রেমিটেন্স অ্যাওয়ার্ড লাভ করেছেন। তার সহধর্মিনী জেসমিন আক্তারও মধ্যপ্রাচ্যের প্রথম মহিলা সিআইপি হিসেবে গৌরব অর্জন করেছেন। এছাড়া আমিরাত সরকার ঘোষিত গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসায়ী হিসেবে গোল্ডকার্ড পেয়েছেন ও দুবাই ইমিগ্রেশন তাকে এবং তার পুরো পরিবারকে গোল্ড কার্ড তথা ১০ বছরের আমিরাতের ভিসা প্রদান করেছেন।

সিআইপি মাহবুব আলম মানিক বলেন, দীর্ঘদিন থেকে প্রবাসে ব্যবসা করে বাংলাদেশীদের জন্য কর্মসংস্থান তৈরি করছি। বর্তমানে টোকিওসেট গ্রুপের পাশাপাশি মোহাম্মদ মাহবুব পারফিউম এলএলসি সহ অনেকগুলো প্রতিষ্ঠানে প্রায় ৭০০ বাংলাদেশী কাজ করছেন। আগামীতে এই সংখ্যা দিগুন হবে এই প্রত্যাশা করছি।