শান্তিগঞ্জে নোয়াখালী প্রিমিয়ার লীগের ফাইনাল সম্পন্ন

প্রকাশিত: ২:৪২ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৫, ২০২৩ 335 views
শেয়ার করুন

নোয়াখালী প্রিমিয়ার লীগ বা এনপিএলের অষ্টম আসর সম্পন্ন হয়েছে। শনিবার বেলা ২টায় শান্তিগঞ্জ উপজেলার নগর গ্রাম সংলগ্ন কাটা গাঙের মাঠে ফাইনাল অনুষ্টিত হয়। দুপুর ১২টায় খেলা শুরু হয়ে শেষ হয় বিকাল সাড়ে ৪টায়। পরে বিজয়ী, বিজেতা খেলোয়ারদের পুরষ্কার ও ইউনিয়নের বীর মুক্তিযোদ্ধাগণকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

বীর মুক্তিযোদ্ধা আমির আলী ফাউন্ডেশন কর্তৃক আয়োজিত নোয়াখালী প্রিমিয়ার লীগের ফাইনাল খেলার পরবর্তী পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মনির উদ্দিন।

খেলোয়ার আলী আহমদ সুজনের পরিচালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন শান্তিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নানের একান্ত রাজনৈতিক সচিব হাসনাত হোসেন।

বিশেষ অতিথি ছিলেন জয়কলস ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল বাসিত সুজন, শিমুলবাক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহীনুর রহমান শাহীন, পাথারিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহীদুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুর রহমান, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম শিপন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আমির আলী ফাউন্ডেশনের কর্ণধার কামাল হোসেন, খেলোয়ার আবু তাহের সনি, তাকবীর হোসেন, মোহাম্মদ সুজাত ও আব্দুর রকিব।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা অমল কান্তি দাস, মনিন্দ্র দাস, রতন কুমার দাস, হাসান মিয়া, আবদুল কাদির, খোকা রঞ্জন দাস, হানিফ উল্লাহ্, অবনী সূত্রধর, শফিক চৌধুরী, আবদুল হক, গৌরাঙ্গ দাশ, নোয়াখালী বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সভাপতি রোকনুজ্জামান রোকন, সাধারণ সম্পাদক হোসাইন আহমেদ, আওয়ামীলীগ নেতা শাহীনুর আলম শাহীন, এনজেবি’র সভাপতি খছরুজ্জামান পাবেল, কলকলি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সুহীন আহমদ দুদু ও শান্তিগঞ্জ কৃষকলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক মাজহারুল ইসলাম মঈনুল প্রমুখ।

সাত দলের লীগ পদ্ধতির এ খেলায় ফাইনালে মুখোমুখি হয় রাইজিং সুপার স্টার বনাম তৌফিক ফাইটার্স। ষোল অভারের শর্ট ফর্মেটের এ খেলায় রাইজিং সুপার স্টারকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ান হওয়ার গৌরব অর্জন করে তৌফিক ফাইটার্স।

তৌফিক ফাইটার্সের ক্যাপ্টেন তাকবীর মিয়া বলেন, আমরা চ্যাম্পিয়ান হয়ে অনেক আনন্দিত। আগামীতেও এ দ্বারা অব্যাহত রাখতে চাই।

রাইজিং সুপার স্টারের উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান আব্দুর রকিব বলেন, খেলায় হারজিত থাকবেই। একটা সময় আমরা জয়ের দাড়প্রান্তে ছিলাম ও যথেষ্ট সুযোগ পেয়েছিলাম কিন্তু কাজে লাগাতে পারিনি।