‘ওয়াটার’ এবং ‘গ্লোবাল হাই স্কুল’ পুরস্কার জিতেছে বাংলাদেশ

লুৎফুর রহমান লুৎফুর রহমান

সম্পাদক ও সিইও, বায়ান্ন টিভি

প্রকাশিত: ১:৩০ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৭, ২০২৩ 293 views
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আজ (১৬ জানুয়ারি) বাংলাদেশ জায়েদ সাসটেইনেবিলিটি প্রাইজের – ‘ওয়াটার’ এবং ‘গ্লোবাল হাই স্কুল’- মোট ছয়টির মধ্যে এই দুটি বিভাগে প্রথম পুরস্কার জিতেছে বাংলাদেশ। স্থানীয় পরিবেশ উন্নয়ন ও কৃষি গবেষণা সোসাইটি (Local Environment Development and Agricultural Research Society – LEDARS) নামের একটি এনজিও দ্বারা দুর্যোগ-প্রবণ উপকূলীয় এলাকায় সমন্বিত পানি সম্পদ ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি যেটি সুন্দরবন এবং সাতক্ষীরা এলাকায় কাজ করছে, সেই প্রকল্পটি ‘পানি’ বিভাগে প্রথম হয়ে এবং পুরস্কারের অর্থ ছিল ৬০০,০০০ ইউএস ডলার। ১৯৯৬ সালে প্রতিষ্ঠিত – LEDARS, নোনা ভূগর্ভস্থ পানিকে, পানীয় ও ফসল চাষের উপযোগী করার জন্য পানি ব্যবস্থাপনার সমাধান দিয়ে দুর্বল সম্প্রদায়কে সহায়তা করে আসছে।

অন্যদিকে পুষ্টি সংরক্ষণে কাজ করা ঢাকা রেসিডেনশিয়াল মডেল কোলেজ কে ১০০,০০০ ইউএস ডলারের প্রাইজমানি সহ অন্য পুরস্কারে ভূষিত করেছে। আরও দুইজন শর্টলিস্টেড প্রতিযোগীকে হারিয়ে, যাদের মধ্যে একজন বাংলাদেশের এবং অন্যজন নেপালে, তারা দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চল থেকে পুরষ্কার জিতেছে। কোরিয়ার রাষ্ট্রপতি সহ বেশ কয়েকটি রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানের উপস্থিতিতে আবুধাবি সাসটেইনেবিলিটি সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রপতি শেখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান বিজয়ীদের হাতে পুরস্কারগুলো তুলে দেন। সংযুক্ত আরব আমিরাতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আবু জাফর পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এবং বিজয়ীদের অভিনন্দন জানিয়ে তাদের উদ্ভাবনী কাজের প্রশংসা করেন যা এই বৈশ্বিক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের পতাকাকে অনেক উঁচুতে তুলেছে।

উল্লেখ্য যে, জায়েদ ফিউচার এনার্জি প্রাইজের একটি বিবর্তন জায়েদ সাসটেইনেবিলিটি প্রাইজ হল ‘Sustaibability’ ক্ষেত্রে সংযুক্ত আরব আমিরাতের অগ্রণী বৈশ্বিক পুরস্কার এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রয়াত প্রতিষ্ঠাতা শেখ জায়েদ বিন সুলতান আল নাহিয়ানের মর্যাদার প্রতি শ্রদ্ধা। ২০০৮ সালে প্রতিষ্ঠিত, এই বার্ষিক পুরষ্কারটি তাদের কৃতিত্বকে স্বীকৃতি দেয় এবং পুরস্কৃত করে যারা নিম্ন পাঁচটি স্বতন্ত্র বিভাগ জুড়ে প্রভাবশালী, উদ্ভাবনী এবং অনুপ্রেরণামূলক টেকসই সমাধান পরিচালনা করছে: স্বাস্থ্য, খাদ্য, শক্তি, জল এবং গ্লোবাল হাই স্কুল।