ফায়সাল আইয়ূব এর পঞ্চপদী

নিউজ ডেস্ক নিউজ ডেস্ক

বায়ান্ন টিভি

প্রকাশিত: ৮:৪৮ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৪, ২০২৪ 133 views
শেয়ার করুন

 

 

০১. হৃদয়ের কারা

আমাকে প্রশান্তি দেয় তোমার চেহারা
তুমি তো আমার তাই হৃদয়ের কারা
প্রেমের বিবাদী আমি
তোমাকে দেখলে থামি
অপরাধী হই যদি দেবে কি পাহারা?

কাউকে করি না মিস শুধু তুমি ছাড়া
আমাকে করে না কারো মায়ামুখ তাড়া
যে সুখ তোমাতে পাই
তা যে কারো কাছে নাই
আমি তা-ই হতে চাই তোমার বেহারা।

 

০২. শহুরে শিয়াল

আমরা অনেক কিছু করি না খিয়াল
কোথায় সেগুন হয় কোথায় পিয়াল
অনেকে অনেক চায়
অনেকে কিছু না পায়
সামান্য খেয়েই বাঁচে শহুরে শিয়াল।

 

০৩. শাখের করাত

অনেকে মৃতের মতো আজীবন বাঁচে
মরণ অধিক ভালো তাহাদের কাছে
অনেকে বাঁচার মতো
আমরণ বাঁচে না তো
মরতে পারে না তবু প্রতীতির আঁচে।

 

০৪. লুকানো রোদন

বেদনা লুকিয়ে সবে ছবিতেই হাসি
সুখস্মৃতি হবে ভেবে ভালোবাসা চাষি
হাসিমুখ খুব ভালো
হোক সেটা শাদা কালো
প্রাণের হাসির লাগি হোক সব বাসি!

ছবিতে যায় না বুঝা হৃদয়ের গ্লানি
যেমন যায় না দেখা বরফের পানি
অনেক হাসির বাঁকে
রোদন লুকানো থাকে
স্বরের গহীনে থাকে হৃদয়ের বাণী।

 

০৫. ভালোবাসাবাদ

ঘুষ খেতে দোষ নেই, চুমু অপরাধ
নিষিদ্ধ প্রেমের দেশে খুনের আবাদ
রাজপথে গোলাগুলি
ঝোপঝাড়ে কোলাকুলি
দিবালোকে কবে হবে ভালোবাসাবাদ?

 

০৬. দূরে নয়, কাছে থাকি

‘মিলবো দুজন ফের যদি বেঁচে থাকি’—
এ কথার তীরে বিঁধে অশ্রু ফোঁটা আঁকি
বলি তাকে—আমি বাঁচি
যদি থাকি কাছাকাছি
গাছ পেতে বীজগুলো মাটি দিয়ে ঢাকি।

হাঁটে না আমার দিন তুমিহীন হলে
ঘুমাতে পারে না রাত শুধু কথা বলে
তুমি বীজ আমি মাটি
আমি তো তোমাতে হাঁটি
তুমিময় ক্ষণগুলো শিশু হয়ে চলে।

 

০৭. ফিঁকে দিন

জীবন হাঁটছে দ্রুত গন্তব্যের দিকে
রঙিন দিনের পর আসে দিন ফিঁকে
কমে সুখ কমে হাসি
বাড়ে দুখ বাড়ে কাশি
জীবন শেষেও শুধু ভালোবাসা টিকে।

 

০৮. প্রাণে শাণ দাও নর

রাগ গোসা অভিমান নারীকে মানায়
সুপুরুষ নিজেদের শুধুই শাণায়
প্রাণে শাণ দাও নর
সকালেই ছাড়ো ঘর
জীবন সফল করো কানায় কানায়!

 

০৯. চারপাশে বন

জানি না জ্ঞানের কথা, আমি সাধারণ
জ্ঞান তো জ্ঞানীর এবং পাগলের ধন
জ্ঞানীর দখলে বিশ্ব
পাগলেরা হয় নিঃস্ব
মানুষ পাই না খুঁজে, চারপাশে বন!

 

১০. চিরপ্রস্থান

নিথর হলেই সবে ভুলে যায় নাম
নামের বদলে ‘লাশ’ শুদ্ধ সর্বনাম
লাশগুলো মূল্যহীন
দাফনে লাগে না দিন
জীবন-ঘোড়ায় তবু টানি না লাগাম!

 

১১. প্রেম ও প্রশ্রয়

নিরাপদ থাকে শিশু পিতার প্রশ্রয়ে
নারীর আদিম সুখ স্বামীর আশ্রয়ে
প্রেমের কাঙাল নর
প্রেম পেলে সব পর
নরনারী সুখী থাকে প্রেম ও প্রশ্রয়ে।

 

১২. গহীনের কথা

চাপাতি চালালে জলে আত্মঘাতী হবো
তারপর ধরাধামে অশান্তিতে র’বো
অশান্তি কুড়াতে চাও?
বারকি উজানে বাও!
গহীনের কথাগুলো কেমনে যে ক’বো?

 

১৩. সুখের অসুখ

কবিরা হয় না সুখী আমি আছি সুখে
আমি তো সাবেক কবি পরের অসুখে
সুখের অসুখে মন
কেঁদে যায় অনুক্ষণ
সুখের বদলে কেউ সুখী হয় দুখে।

 

১৪. ভোটের বিবাদী

আশ্বাসে বিশ্বাস নেই তোরা মিথ্যেবাদী
লুটের নেশায় তোরা ভোটের বিবাদী
দাঁতাল হায়েনা তোরা
চেতনা লোমশে ভরা
নিরাশ জনতা তবু থাকে আশাবাদী!

জনগণ আমরণ ভুখা থেকে যায়
তোদের আদিম ক্ষুধা তবু না ফুরায়
হৃদয় ইস্পাতে গড়া
কান্নায় দেয় না নড়া
নীতিহীন রাজনীতি জনতা কাঁদায়।

 

১৫. চাই শুধু মাফি

নবীকে নিষ্পাপ মানি আমি মহাপাপী
দিনরাত কত পাপ কভু নাহি মাপি
ক্ষমা করো ও হে প্রভু
আর নয় পাপ কভু
তাওবা কবুল করো, চাই শুধু মাফি।

 

১৬. গালিব ইহতিশাম

পিতার প্রদীপ তুমি মায়ের মমতা
তুমি তো আত্মার সাঁকো বুনেছো সমতা
প্রোজ্জ্বল মানুষ হও
মানুষের মাঝে রও
প্রকৃত মানুষে থাকে সূর্যের ক্ষমতা।

 

১৭. মাহনূর সাফা

মায়ের ডাক্তার মেয়ে বাবার মা-মণি
মানবসেবিকা হয়ে তাড়াবে যে শনি
তোমার মেধাবী মুখ
মনোভূমে বোনে সুখ
মেধাবী মানুষ সে তো রতনের খনি।

 

১৮. সন্তান

আমাকে হাসায় তারা কখনো রাগায়
বানিয়ে খেলার সাথী অসুখ ভাগায়
বাবাকে বানিয়ে ঘোড়া
পিঠে চড়ে শিশু জোড়া…
শিশুরাই হেসেখেলে পৃথিবী জাগায়।

আমাকে ভাবায় তারা খুশিতে ভাসায়
তারা তো কুড়ায় সুখ তাদের ভাষায়
ধীমান ধীবতী হবে
স্বনাম সুনামে রবে
শিশুরা স্বপন বোনে পিতার বাসায়।

 

১৯. প্রেমশিখা

তোমাকে এখনো প্রিয় খুব ভালোবাসি
এখনো দেখতে পাই সুললিত হাসি
তোমাকে স্মরণ হলে
প্রেমশিখা ওঠে দোলে
তোমাকে এখনো তাই মনোভূমে চাষি।

 

২০. স্বর্গীয় বন্ধন

প্রথম সম্পর্ক বিয়ে, স্বর্গীয় বন্ধন
বন্ধন আত্মিক হলে ছড়ায় চন্দন
তা না-হলে সব তিতা
কেউ নয় কারো মিতা
প্রেমহীন নারী-নরে শুধুই ক্রন্দন।

২১. আঁধারেই আলো বাঁচে

বিকেলটা মরে গেলে সূর্য ডুবে যায়
সন্ধ্যার সৈকতে নাচে রাতের অমায়—
জীবন যেমন হয়
প্রতিদিন যার ক্ষয়
প্রতিটি বিকেল তাই আমাকে কাঁদায়।

রাতের আঁধারে ফের হাসে চাঁদ তারা
তারা যেন জীবনের বিনয়ী দোতারা
আঁধারেই আলো বাঁচে
ভ্রুণ তো আঁধারে নাচে
আঁধার আলোকে দেয় পরোক্ষ পাহারা।

২২. অ্যারিওলা ফেরিওলা

অ্যারিওলা কী জিনিস ফেরিওলা বোঝে?
ফেরিওলা হাঁক ছেড়ে শুধু ক্রেতা খোঁজে
কবি প্রেম ফেরি করে
প্রেমে বাঁচে প্রেমে মরে
অ্যারিওলা ফেরি করে নারী চোখ বোজে।

অ্যারিওলা নিয়ে হাঁটো ফেরিওলা আমি
তোমাকে দেখলে পরে ব্রেক কষে থামি
যাচি প্রেম নাচি নাচি
আসি খুব কাছাকাছি
অ্যারিওলা ফুটে গেলে ফেরিওলা ঘামি।

২৩. ব্যর্থতা সাফল্য

ব্যর্থ মানুষের ছবি কেউ তো আঁকে না
ব্যর্থতায় ডুবে গেলে কেউই ডাকে না
জীবনে সফল হলে
সকলেই বন্ধু বলে
ব্যর্থ মানুষের কোনো বান্ধব থাকে না।

সফল হলেই জুটে বন্ধু অগণন
পথের কাঁটাই নয় সরে যায় বন
ব্যর্থতা বিছার মতো
বাড়ায় শুধুই ক্ষত
সাফল্যে স্বজন এসে করে ভনভন।

২৪. জনতা জাগে না কেন!

জনতা জাগবে কবে তাড়াতে ডাকাত
বয়স্ক ডাকাতে থাকে হায়েনার দাঁত
হায়েনারা জোটে হাঁটে
এরা থাকে সব ঘাটে
জনতা জাগলে পরে কেটে যায় রাত।

জনতা জাগে না কেন ধরতে ডাকাত
আঘাতে করে না কেন তীব্র প্রতিঘাত
ডাকাত লোমশ হয়
লোমশেরা বনে রয়
জনতা জাগলে হাসে সোনালী প্রভাত।

২৫. কবিতার নেশা

কেউ কেউ বেছে নেয় গণকের পেশা
কেউ ফের আজীবন নর-নারী ঘেঁষা
কেউ শুধু আলো চায়
কেউ কালো ভালো পায়
সব নেশা খুন করে কবিতার নেশা।

২৬. কবি চিরজীবী

কবিরা মরে না জানি, মরেনি হোমার
মরেনি ভার্জিল রুমী হাফিজ আত্তার
দান্তে সাদী বেঁচে আছে
খৈয়ামে হৃদয় নাচে
কবিতায় ফুটে ফুল মানব-আত্মার।