সাভারে সাস এর উদ্যোগে বিশ্ব দুগ্ধ দিবস পালিত

তপু ঘোষাল তপু ঘোষাল

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ৩:৫৫ অপরাহ্ণ, জুন ১, ২০২৩ 200 views
শেয়ার করুন

“এক গ্লাস দুধ দিয়ে শুরু করুন দিন” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে সারা দেশের ন্যায় সাভারে স্যোসাল আপলিফটমেন্ট সোসাইটি (সাস) এর উদ্যোগে দিবসটি পালিত হলো।

বৃহস্পতিবার(১লা জুন) সকাল ১০টায় প্রথমে ঢাকা জেলার সাভার সরকারি মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সাস স্যোসাল আপলিফটমেন্ট সোসাইটি (সাস) পরিচালিত সাসটেইনেবল এন্টারপ্রাইজ প্রজেক্টের আওতায় এই দিবসে শিশুদের মাঝে বিনামূল্যে তরল দুধ পান করানো হয়। আদর্শ খাদ্য হিসেবে সকলের মাঝে খাঁটি দুধ পানের অভ্যাস গড়ে তোলার জন্য দুটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় ১ হাজার শিশুকে দুধ খাওয়ানো হয়।

এ সময় সকলের মাঝে খাটি দুধ পৌছে দেওয়ার লক্ষে সোস্যাল আপলিফটমেন্ট সোসাইটি (সাস) খামারিদের জন্য দুগ্ধ বিক্রয় কেন্দ্র স্থাপন করে দেন। এতেকরে স্থানিয়ভাবে সকলে খাটি দুধ ক্রয় করে সেবন করতে পারবে।

উক্ত অনুষ্ঠানে সোস্যাল আপলিফটমেন্ট সোসাইটি (সাস) এর নির্বাহী পরিচালক হামিদা বেগম এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাভার উপজেলা শিক্ষা অফিসার নাজমুস শিহার। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাস এর পরিচালক বীর মুক্তিযোদ্ধা কৃষিবিদ ড. রফিকুল ইসলাম মোল্লা, সাভার সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট এর সভাপতি আব্দুল কাদের তালুকদার। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাস এর উপ-পরিচালক মঞ্জুর মোর্শেদ, উপ-পরিচালক ও প্রকল্প ব্যবস্থাপক কমল কুমার সাহা।

এ সময় মানসম্মত দুধ ক্রয় বিক্রয়ের জন্য খামারিদের বিষয়ে কিছু পরামর্শ প্রদান করা হয়।উপস্থিত সাস এর কর্মকর্তা বলেন, গ্রামীণ দুগ্ধ সংগ্রহ কেন্দ্রে ভেজাল ও পানি মিশ্রিত দুধ বিক্রয় করা সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করতে হবে,অসুস্থ-রোগাক্রান্ত গাভীর দুধ ক্রয়-বিক্রয় পরিহার করতে হবে,দুগ্ধ সংগ্রহ কেন্দ্রে আনিত দুধ ভেজালমুক্ত কিনা তা কেন্দ্রে রক্ষিত দুধ পরীক্ষার যন্ত্রের (লাকটোমিটার) মাধ্যমে পরীক্ষা করে বিক্রয়ের ব্যবস্থা করতে হবে, দুধের বোতল / পাত্র নিয়মিত ভালভাবে পরিস্কার করে দুধ সংগ্রহ ও সংরক্ষণ করতে হবে; কেন্দ্রে স্থাপিত নলকূপের পানিতে সাবান বা হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে হাত ভালভাবে ধৌত করতে হবে,দুগ্ধ সংগ্রহ কেন্দ্রের ভিতরে ধূমপান করা সমপূর্ণ নিষিদ্ধ, কেন্দ্রের ভিতরে থুথু, পানের পিক অথবা যে কোন ধরনের ময়লা ফেলা যাবে না; অব্যবহৃত প্লাস্টিক বোতল, পলিথিন ও অন্যান্য বর্জ্য নির্দিষ্ট স্থানে ফেলতে হবে, গ্রামীণ দুগ্ধ সংগ্রহ কেন্দ্রের রক্ষণাবেক্ষণ করা ও পরিস্কার-পরিছন্ন রাখা ক্রেতা-বিক্রেতা সবার দায়িত্ব।

সরকারী নির্দেশনা মোতাবেক করোনা পরিস্থিতি বিবেচনাপূর্বক ক্রেতা-বিক্রেতা ও অন্যান্য সকলের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় মাস্ক পরিধান করা বাধ্যতামূলক করতে হবে।

এসময় খামারিদের পক্ষে তাদের অভিমত প্রকাশ করে বলেন বাজারে দুধ বিক্রয় করারমত ভাল কোন পরিবেশ নাই। আমরা ঝড় বৃষ্টির মধ্যে রাস্তায় দাড়িয়ে দুধ বিক্রি করি। দুধ বিক্রির এমন সুন্দর একটি কেন্দ্র পেয়ে আমরা আনন্দিত। আমরা সাস কে ধন্যবাদ জানাই আমাদের সুন্দর একটি ঘর তুলে দেওয়ার জন্য।