আমিরাতে চট্টগ্রাম চকরিয়া প্রবাসীদের প্রতিবাদ সভা

তিশা সেন তিশা সেন

বায়ান্ন টিভি

প্রকাশিত: ৪:৪০ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৭, ২০২০ 393 views
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশ্বে ১৩০টির মতো দেশ আছে, যেখানে পুরো জনসংখ্যাই কোটির কম। আর বাংলাদেশের এক কোটির বেশি মানুষ বিদেশে নিয়মিত আয় করছেন। স্বাধীনতা-পরবর্তী গত প্রায় পাঁচ দশকে বাংলাদেশের বড় অর্জন অনেক। সেই তালিকায় পোশাকশিল্পের উত্থান, ক্রিকেটে আন্তর্জাতিক মানে পৌঁছানো ইত্যাদির সঙ্গে সামনে থাকতে পারে বিভিন্ন দেশে কোটির বেশি মানুষের আয়-রোজগারে যুক্ত হওয়ার বিষয়। এই তিন অর্জনের প্রথম দুটিতে উত্থান-পতন আছে। কিন্তু প্রবাসী শ্রমজীবীদের অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশের ভরসা বেশ টেকসই। প্রবাসী মানেই দেশের সত্যিকারের রত্ন। কিন্তু তাদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার যেন বেড়েই চলেছে। এবার চকরিয়া প্রবাসীদের সংগঠন চকরিয়া প্রবাসী ইউনিয়ন সংযুক্ত আরব আমিরাত শাখার কিছু নেতৃবৃন্দের সাথে এমন ঘটেছে বলে জানিয়েছেন বক্তারা।

গত ২৪ ডিসেম্বর, চকরিয়া প্রবাসী ইউনিয়নের শীর্ষ নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনলাইন ভিত্তিক নিউজ পোর্টাল, প্রিন্ট মিডিয়া, পত্রপত্রিকা ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সংগঠনের নাম ভাঙ্গিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাতের মিথ্যা ভিত্তিহীন, মনগড়া ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভুয়া সংবাদ প্রচার করা হয়। এর প্রতিবাদে, ২৫ ডিসেম্বর আজ্মানের একটি রেস্তোরায়, চকরিয়া প্রবাসী ইউনিয়ন সংযুক্ত আরব আমিরাত শাখা এক বিশাল প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে।

এহেছান চৌধুরী এর সভাপতিত্বে ও মিজানুর রহমানের সঞ্চালনায়, প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হাসান মোল্লা। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন মোজাম্মেল হক। তিনি প্রবাসী সকল সংগঠনের কাজের বিষয়ে বলেছেন এবং প্রবাসীদের বিরুদ্ধে চলা অপপ্রচারের প্রতি নিন্দা জানিয়েছেন তাঁর বক্তব্যে। বিশেষ বক্তা হিসেবে আরো বক্তব্য রাখেন মিজানুল হক, সরওয়ার আলম ও রফিউল আলম রফিক। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডাঃ মাসুদ, চকরিয়া প্রবাসী ইউনিয়ন সংযুক্ত আরব আমিরাত শাখার সাধারণ সম্পাদক এস এম মিনার চৌধরী ও সদস্য সচিব মোহাম্মদ সোহেল। আয়োজনটির সর্বাঙ্গিক সহযোগিতায় ছিলেন আরমান,ঈসা, ইয়াসিন, শহিদ, হুমায়ূন, জাফর, নোমান, নেজান,কামাল, আলমগীর, ইমন সহ সংগঠনের আরো নেতৃবৃন্দ ও সদস্যবৃন্দ।

সভায় উপস্থিত নেতৃবৃন্দরা জানান সংবাদমাধ্যম বা সাংবাদিকরা হচ্ছেন সমাজের দর্পণ। শতভাগ সঠিক সংবাদ প্রচারের কোনো বিকল্প নেই। মানুষ ঘটনার সঠিক সংবাদ জানতে চায়। সত্য লুকানোর মধ্যে ঘটনার প্রতিকার হয় না। সঠিক ও সৎ সাংবাদিকতা সমাজ বদলে দিতে পারে ও মিথ্যে সংবাদে অনেক গুলো জীবনে আঘাত আনতে পারে।

মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ প্রচারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানোর পাশাপাশি প্রকাশিত অভিযোগের ভিত্তিতে চকরিয়া উপজেলা প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ করা হয় যেন নিরপেক্ষ বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করে সত্য উদঘাটন করা হয়। যদি সংগঠনের কেউ দুর্নীতি বা টাকা আত্মসাতের সাথে জড়িত থাকে তার বিরুদ্ধে যেন আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হয়। যদি উত্থাপিত অভিযোগের সত্যতা পাওয়া না যায় যে বা যারা মিথ্যা ও ভিত্তিহীন সংবাদ প্রচার করেছে এবং প্রচারে যারা ইন্দন দিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে যেন আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। বক্তারা আরো বলেন এ ধরণের ষড়যন্ত্রে বিচলিত না হয়ে সকল প্রবাসীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে মোকাবেলা করতে হবে। ষড়যন্ত্রকারীরা যতই ষড়যন্ত্র করুক না কেন চকরিয়া প্রবাসী ইউনিয়নের অগ্রগামিতা কে থামিয়ে রাখা সম্ভব না। সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে ষড়যন্ত্রকারীদের সকল ষড়যন্ত্রের নীলনকশা জাল ছিন্ন করে একদিন সফলতার মূল লক্ষ্যে পৌঁছানোর আশা ব্যক্ত করা হয়।