জয়া’তে মুগ্ধ কলকাতা সিনেমাপ্রেমীরা

প্রকাশিত: ৭:৩১ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৯, ২০২১ 138 views
শেয়ার করুন
  • 11
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    11
    Shares

 

দেশের গন্ডি পেরিয়ে পাশ্ববর্তী দেশ ভারতের কলকাতায়ও সমান জনপ্রিয় নন্দিত অভিনেত্রী জয়া আহসান। তার অভিনয় খুবই পছন্দ করেন ওপার বাংলার দর্শক। একের পর এক প্রশংসিত ও সফল সিনেমা তিনি উপহার দিয়েছেন। সম্প্রতি করোনা পরিস্থিতিতেও মুক্তি পেয়েছে তার অভিনীত ‘বিনিসুতোয়’ সিনেমাটি।এই সিনেমা দিয়ে দীর্ঘদিন পর কলকাতার প্রেক্ষাগৃহ খুলেছে।

গেল শুক্রবার (২০ আগস্ট) সেখানকার একটিমাত্র প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায় এ সিনেমা। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারজয়ী নির্মাতা অতনু ঘোষ পরিচালিত এই সিনেমায় জয়ার বিপরীতে অভিনয় করেছেন ঋত্বিক চক্রবর্তী। ছবিটি বেশ দর্শক টানছে।

এই করোনার সময়ে বেশ ঝুঁকি নিয়েই মুক্তি দেওয়া হয়েছে ‘বিনিসুতোয়’। সেই চ্যালেঞ্জ নিয়ে সাফল্য এসেছে। কলকাতার একাধিক গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সেই তথ্যই জানা গেল।

তবে অভিনেত্রী জয়া এবার কলকাতার দর্শককে মুগ্ধ করেছেন গায়িকা হিসেবেও। ছবিতে অভিনয়ের পাশাপাশি একটি রবীন্দ্রসংগীতে কণ্ঠ দিয়েছেন তিনি। শিরোনাম ‘সুখের মাঝে তোমায় দেখেছি’। এই গান বেশ আলোচনায় এসেছে।

জয়ার গানের প্রশংসা করছেন পরিচালক অতনুও। তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, জয়ার অভিনয়ের সঙ্গে দর্শকের জন্য বাড়তি পাওয়া হিসেবে এসেছে তার কণ্ঠের গান। এ গানটির কথা আলাদা করে বলছেন দর্শক। গণমাধ্যমেও লেখালেখি হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘গান গাওয়ার আগে জয়া নিজের গলা যথেষ্ট ঘষামাজা করেছেন। সেটা তার গায়কীই বলে দিচ্ছে। তার কথা বলার নিজস্বতা রয়েছে। সেখানে অন্য কোনো কণ্ঠ গানটি গাইলে মানাত না। জয়া অনেক শ্রম দিয়েছেন এ গানে। সিনেমার বিশেষ দৃশ্য তার সাক্ষী।’

ছবিতে কাজল ও শ্রাবণীর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন ঋত্বিক ও জয়া। মধ্য তিরিশের এই দুই মানুষের একে অপরের সঙ্গে পরিচয় হয় একটি রিয়েলিটি শোয়ের অডিশনে। দু’জনের জীবনের গল্পে বেশ কিছুটা মিল থাকায় খুব তাড়াতাড়িই পরস্পরের সঙ্গে মিশে যান তারা। কিন্তু এরই মাঝে এক দুর্ঘটনায় আহত হন শ্রাবণী। দ্রুত তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান কাজল। যাওয়ার পথে তারা একে অপরের সঙ্গে শেয়ার করেন জীবনের ঘাত-প্রতিঘাতের গল্প। এ নিয়েই ‘বিনিসুতোয়’।

জয়া-ঋত্বিক ছাড়াও ছবিতে অভিনয় করেছেন চান্দ্রেয়ী ঘোষ, কৌশিক সেন, রেশমি সেন, খেয়া চট্টোপাধ্যায় প্রমুখ।